Category: শোকের কবিতা

নক্‌শী কাঁথার মাঠ

এক। বন্ধুর বাড়ি আমার বাড়ি মধ্যে ক্ষীর নদী, উইড়া যাওয়ার সাধ ছিল, পাঙ্খা দেয় নাই বিধি। — রাখালী গান এই এক গাঁও, ওই এক গাঁও — মধ্যে ধু ধু মাঠ,…

পুরাতন ভৃত্য

ভূতের মতন চেহারা যেমন, নির্বোধ অতি ঘোর। যা-কিছু হারায়, গিন্নি বলেন, ‘কেষ্টা বেটাই চোর।’ উঠিতে বসিতে করি বাপান্ত, শুনেও শোনে না কানে। যত পায় বেত না পায় বেতন, তবু না…

কর্ম

ভৃত্যের না পাই দেখা প্রাতে। দুয়ার রয়েছে খোলা, স্নানজল নাই তোলা, মূর্খাধম আসে নাই রাতে। মোর ধৌত বস্ত্রখানি কোথা আছে নাহি জানি, কোথা আহারের আয়োজন! বাজিয়া যেতেছে ঘড়ি বসে আছি…

তাহারেই পড়ে মনে

“হে কবি! নীরব কেন-ফাল্গুন যে এসেছে ধরায়, বসন্তে বরিয়া তুমি লবে না কি তব বন্দনায়?” কহিল সে স্নিগ্ধ আঁখি তুলি- “দখিন দুয়ার গেছে খুলি? বাতাবী নেবুর ফুল ফুটেছে কি? ফুটেছে…