হারিয়ে গেছে বৃষ্টি এখন বৃষ্টি কি আর নামে
শরৎ জাগায় রূপের সাড়া বাংলাদেশের গ্রামে
গ্রাম হয়ে যায় রূপের আড়ঙ গ্রাম হয়ে যায় ছবি
আমার মনের রঙতুলিতে রঞ্জিত তাই সবই।
সাতসকালে সূর্য দেখি চোখ জুড়ানো হাসে
সেই হাসি তার ছড়িয়ে পড়ে সমস্ত উচ্ছ্বাসে।
খোশ মেজাজে রঙিন সাজে সাজায় আলোর জরি
সবুজ পাতার বন হয়ে যায় অপূর্ব সুন্দরী।
গ্রামের মাঠে ঘাসের ঠোঁটে চুম দিয়ে যায় রোদ
মনের ভেতর কাঁপন জাগায় অপূর্ব এক বোধ
জুড়োয় এমন আলোর নাচন জাম জারুলের গাছে
শিউলি ফুলের গন্ধ এসে বেড়ায় বাড়ির কা।ে
দূর্বাঘাসের রঙ দেখি সেই ফড়িংগুলোর ডানায়
ঝিঙেলতায় ফিঙে নাচে যেমন করে মানায়
শান্ত ছায়া বাড়ায় মায়া গন্ধ বিলোয় যুথী
শরৎরঙের পরত খুলে ছড়ায় আলোর দ্যুতি।
আকাশটাকে দেখায় দারুণ সূর্যদীঘল বাড়ি
বাড়ির ছাদে যেন বা কেউ শুকোয় মেঘের শাড়ি
ফকফকে সেই শাড়ির গায়ে শাদা রঙের ছোপ
বৃষ্টিধোয়া হয়তো বা তাই দেখান এমন ধোপ।
নদীর জলে সুর তোলে ঢেউ মল্লা-মাঝির গানে
পালতোলা সেই নৌকোগুলো বাতাস ধরে টানে
কাশের বনে ফুলপরীরা ছড়িয়ে তাদের ডানা
হাতছানিতে হয়তো আমায় যায় ডেকে একটানা।
উছল বালক তাইতো আমি সেই ডকে দেই সাড়া
আমার তো আর নেই যে কোনো বাড়ির কাজের তাড়া
প্রায় সারাদিন মাতিয়ে রাখি আমি কী আর বোবা
চোখের পাতায় সাজিয়ে রাখি শরৎরানীর শোভা।

 

Error: View 025c329dwl may not exist

আপনি যদি কবিতার আকাশে লিখতে চান তাহলে রেজিস্ট্রেশন করুন

Loading

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *