জানি তোমার আমার দুস্তর ব্যবধান
তবু তোমার প্রতি কিসের এত টান
জানি ওসব ছিলো মিথ্যে অভিমান
তবু তোমার প্রতি কিসের এত টান

আচ্ছা শুভ্র
তুমি ঠিক কার মতন?
আমার?
নাকি আমার একান্ত ভাবনার মতন?
আচ্ছা বাদ দাও।
কেমন আছো?
কাটছে কেমন দিন?
শুনেছি পুরো ভার্সিটি জুড়ে তোমার নামের হইহই রইরই।
গান গাও,
কবিতা আবৃত্তি করো,
ভালো ক্রিকেট খেলো আরো কত কী…
জানো তো আমার এসব বিশ্বাস হয় না।
কোনদিন
স্বচক্ষে দেখিনি তো। শুধু জানি তুমি খুব এবং খুউব ভালো লিখো।
এগুলো বুঝি তোমার…
ঐ তো যাকে সুপ্ত প্রতিভা বলে।
অনেক মেয়েও নাকি পাগল তোমার জন্য;
শুনেছি।
তোমার জন্মদিনও নাকি এখন বেশ হই-হুল্লোড় করে পালন হয়।
বিশাল কেক কাটা,
শত রঙের বেলুন উড়ানো,
হল ভাড়া নেওয়া,
পোস্টার, ব্যানার আরো কত কী।
আচ্ছা, এখন তো কত কত নতুন গান লিখো।
কত কত প্রেম,
দুঃখবোধ,
জীবনবোধ মিলিয়ে মিশিয়ে লিখো কতকিছু।
তোমার কি মনে পড়ে?
আমাকে নিয়ে লেখা সেই গানটা।
যদিও সব লেখাই ছিলো আমাকে নিয়ে,
শুনেছি।
তুমি বলেছো।
তোমার সেই লেখাটা…

তার এক চোখেতে থাকতো নদী
অন্য চোখে মেঘ
তার ভাল্লাগে না অসুখ ছিলো
ঠোঁটে কথার ঠেক

তার ইচ্ছেরা সব পারতো উড়তে
রাখতো আলতো ব্যাথা
তার প্রয়োজনে সবই ছিলো
শুধু আমি রাফখাতা

সত্যি তাই।
শুধু আমি রাফখাতা।

ও হ্যাঁ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছেলেরা তোমার একটা ছবি টাঙিয়েছে
ছবির হাটের সামনে নার্সারিগুলোর ওখানে।
দেখলাম গায়ে তোমার বোতাম ছেড়া হলুদ পাঞ্জাবিটা।
তবে কি বোতামটা এখনো লাগাও নি?

আচ্ছা শুভ্র
মনে আছে? এই ছবির হাটের মুক্তমঞ্চেই আমাদের প্রথম পরিচয়।
তুমি গাও গান আর আমি করি ক্ল্যাসিক্যাল ডান্স।
তুমি নাকি নাচ দেখা বাদ দিয়ে শুধু আমার চোখজোড়াতে ডুবে যেতে ব্যস্ত ছিলে।
বলেওছিলে-
এমন আত্মঘাতী চোখ নিয়ে স্টেজে উঠবেন না প্লিজ।
মানুষ ও চোখে চেয়ে মাতাল হলে সে দায়ভার কি আপনি নেবেন?
জানো, লজ্জা লাগছিলো খুব, ভালো যে লাগেনি তা বলবো না।
বোধহয় একটা কবিতাও লিখেছিলে “কতবার বলেছি ওভাবে তাকাবে না” শিরোনামে।
মিথ্যা ছিলো কিনা আজও জানি না।
তবে কি জানো?
এ চোখ এখন ষড়ঋতুর রঙ ভুলেছে,
এখন শুধুই বর্ষাকাল। বৃষ্টি ঝরে অঝর ধারায়।
যে বৃষ্টিকাল তোমার ভীষণ রকমের প্রিয়।
যদিও বৃষ্টিতে তোমার জ্বরের ভয়।
আচ্ছা,
এখনো কি তুমি বৃষ্টিতে রবীন্দ্রনাথ শুনো?
“আজি ঝরো ঝরো মুখরো বাদলে দিনে…”
নাকি ব্যস্ততায় আর সময় পাও না খুব?

জানো শুভ্র?
পেপারে দেওয়া তোমার সব সাক্ষাৎকার আমি সংগ্রহে রেখেছি।
জানোই তো প্রিয় মানুষের ছবি কেটে ডায়রি ভরে রাখা অভ্যাস আমার।
আচ্ছা এত এত ব্যস্ততা তোমার।
তবে আমিও কি ব্যস্ততার খানিক?
ধুর ছাই কি যে বলছি।
তোমার এত্ত গুরুত্বপূর্ণ সময়গুলো যতসব বকবকুনিতে নষ্ট করছি।
জানো?
আমার প্রচুর সময় এখন।
ও হ্যাঁ প্রথম লিখেছি।
তোমার জন্য? নাহ্ না।
আমার জন্য…

রোজ ভাঙছি ট্রাফিক
আমি রুটিন মাফিক
ভুলে গিয়ে লোডশেডিং এর ভয়
চাইলেই তুমি পাবে
যা তুমি আজ চাইবে
তবুও তোমার হচ্ছে না সময়

শুভ্র??
জানি তোমার আমার দুস্তর ব্যবধান
তবু তোমার প্রতি কিসের এত টান?
জানি ওসব ছিলো মিথ্যে অভিমান
তবু তোমার প্রতি কিসের এত টান?

আবৃত্তি: নাফিসা মোসলেম


Error: View e71e7f42sf may not exist

প্রেমের কবিতাসমূহ

 

Error: View b6c189blmh may not exist

আপনি যদি কবিতার আকাশে লিখতে চান তাহলে রেজিস্ট্রেশন করুন

Loading

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *