আপনাদের সবার জন্য এই উদার আমন্ত্রণ
ছবির মতো এই দেশে একবার বেড়িয়ে যান।
অবশ্য উল্লেখযোগ্য তেমন কোনো মনোহারী স্পট আমাদের নেই,
কিন্তু তাতে কিছু আসে যায় না— আপনার স্ফীত সঞ্চয় থেকে
উপচে-পড়া ডলার, মার্ক কিংবা স্টার্লিংয়ের বিনিময়ে যা পাবেন
ডাল্লাস অথবা মেম্ফিস অথবা ক্যালিফোর্নিয়া তার তুলনায় শিশুতোষ।

আসুন, ছবির মতো এই দেশে বেড়িয়ে যান
রঙের এমন ব্যবহার, বিষয়ের এমন তীব্রতা
আপনি কোন শিল্পীর কাজে পাবেন না, বস্তুত শিল্প মানেই নকল নয় কি?
অথচ দেখুন, এই বিশাল ছবির জন্য ব্যবহৃত সব উপকরণ
অকৃত্রিম;
আপনাকে আরও খুলে বলি: এটা, অর্থাৎ আমাদের এই দেশ,
এবং আমি যার পর্যটন দফতরের অন্যতম প্রধান, আপনাদের খুলেই বলি,
সম্পূর্ণ নতুন একটি ছবির মতো করে
সম্প্রতি সাজানো হয়েছে!

খাঁটি আর্যবংশসম্ভূত শিল্পীর কঠোর তত্ত্বাবধানে ত্রিশ লক্ষ কারিগর
দীর্ঘ ন’টি মাস দিনরাত পরিশ্রম করে বানিয়েছেন এই ছবি।
এখনো অনেক জায়গায় রঙ কাঁচা— কিন্তু কী আশ্চর্য গাঢ় দেখেছেন?

ভ্যানগগ― যিনি আকাশ থেকে নীল আর শস্য থেকে সোনালি তুলে এনে
ব্যবহার করতেন― কখনো, শপথ করে বলতে পারি
এমন গাঢ়তা দ্যাখেন নি!

আর দেখুন, এই যে নরমুণ্ডের ক্রমাগত ব্যবহার― ওর ভেতরেও
একটা গভীর সাজেশান আছে― আসলে ওটাই এই ছবির― অর্থাৎ
এই ছবির মতো দেশের― থিম!

Error: View a38e1cdef9 may not exist

Loading

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *