কাহেরে ঘিনি মেলি আছহুঁ কীস।
বেঢ়িল হাক পড়ই চৌদীস॥
অপণা মাংসেঁ হরিণা বৈরী।
খনহ ন ছাড়ই ভুসূকু অহেরী॥
তিণ ন হুবই হরিণা পিবই ন পাণী।
হরিণা হরিণির নিলঅ ণ জাণী॥
হরিণী বোলই সূণ হরিণা তো।
এ বণ ছাড়ী হোহু ভান্তো॥
তরঙ্গতেঁ হরিণার খুর ন দীসই।
ভুসূকু ভণই মূঢ়া-হিঅহি ণ পইসই॥

 

অনুবাদ

সুব্রত অগাস্টিন গোমেজ

কারে করি গ্রহণ আমি, কারেই ছেড়ে দেই?
হাঁক পড়েছে আমায় ঘিরে আমার চৌদিকেই।
হরিণ নিজের শত্রু হ’ল মাংস-হেতু তারই,
ক্ষণকালের জন্য তারে ছাড়ে না শিকারী।
দুঃখী হরিণ খায় না সে ঘাস, পান করে না পানি,
জানে না যে কোথায় আছে তার হরিণী রানি।
হরিণী কয়, হরিণ, আমার একটা কথা মান্ তো,
চিরদিনের জন্য এ-বন ছেড়ে যা তুই, ভ্রান্ত!
ছুটন্ত সেই হরিণের আর যায় না দেখা খুর–
ভুসুকুর এই তত্ত্ব মূঢ়ের বুঝতে অনেক দূর।

 

Error: View 178cabf2nw may not exist

আপনি যদি কবিতার আকাশে লিখতে চান তাহলে রেজিস্ট্রেশন করুন

Loading

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *